অভ্যন্তরীণ সজ্জায় এম.ডি.এফ বোর্ড

অভ্যন্তরীণ সজ্জায় অন্যতম সহায়ক উপকরণ হলো বিভিন্ন ধরনের বোর্ড। এসব বোর্ড একই সাথে কাঠের বিকল্প হিসেবে পরিবেশবান্ধব ও মূল্য কাঠের তুলনায় সাশ্রয়ী। পাশাপাশি এসব উপকরণ অন্তঃপরিসরের শোভাবর্ধনের ক্ষেত্রে নতুন নতুন সম্ভাবনার সৃষ্টি করেছে। অভ্যন্তরীণ সজ্জায় এম.ডি.এফ বোর্ড নিয়ে আলোচনা করবো।

বর্তমানে বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন বোর্ডের মধ্যে রয়েছে দেশী-বিদেশি কোম্পানির পার্টিকেল বোর্ড। এসব বোর্ড বিভিন্ন পুরুত্বের এবং অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন কাঠ, ভিনাইল বা মেলামাইনের পাতলা আবরণ সম্বলিত হয়ে থাকে। আসবাব তৈরীর ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিকভাবে প্রচলিত হলেও আমাদের দেশের নতুন ভাবে প্রচলিত হয়েছে আরেকটি বোর্ড যা MDF বোর্ড নামে পরিচিত । MDF বলতে বুঝায় Medium Densed Fiber. অত্যাধিক চাপে কাঠের বিভিন্ন Fiber কে সংকুচিত করে এই বোর্ড তৈরি করা হয়। এসব বোর্ড সাধারণত ১/২”,৩/৪” এবং ১” পুরুত্বের হয়। আকারে এগুলো সাধারণত ৮ ফুট ৪ ফুট। এসব বোর্ড সাধারণত দেয়াল কেবিনেট, রান্নাঘরের কেবিনেট, ফাইল কেবিনেট, ডিনার ওয়াগণ, অফিস ওয়ার্ক স্টেশন, পার্টিশন দেয়াল, টেবিল ইত্যাদি নানা ধরনের আসবাব তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও গৃহসজ্জার  জন্য দেয়ালে প্যানেল হিসেবে, সিলিং এ বা শব্দনিরোধক এর জন্য এবং অন্যান্য সাজ সজ্জার জন্য ব্যবহার করা যায়।

সাধারণ পার্টিকেল বোর্ড ৩০০ থেকে ৪০০ পি এস আই চাপে তৈরি করা হয়, যেখানে MDF বোর্ড ৬০০ থেকে ৭০০ পি এস আই চাপে তৈরি। কত চাপে তৈরি করা হবে তা অনেকটা নির্ভর করে কোন ফাইবার এবং আঠা ব্যবহার করা হচ্ছে তার ওপর। বেশি চাপে তৈরি হওয়ায় এর Surface অনেক বেশি মসৃণ থাকে। HDF  বা High Density Fiber বোর্ড এর চেয়েও অনেক বেশি চাপের তৈরি হয় যা সাধারণত কাঠের মেঝের পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়।

অন্যান্য বোর্ডের চেয়ে এসব বোর্ড দিয়ে কাজ করা অপেক্ষাকৃত সহজ ও সময় সাশ্রয়ী। অন্যান্য কাঠের কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি এর জন্য ব্যবহৃত হয় তবে এই বোর্ড  Fiber এর হবার কারণে এর প্রান্তগুলোতে কাঠের বিট ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না। কাঠ ব্যবহার না হলেও এর ঘনত্ব বেশি হওয়ায় ধারগুলো সমান থাকে এবং এর কণাগুলো ঝরে পড়ার সম্ভাবনা থাকে না। এতে একই সাথে তারকাটা এবং স্ক্রু ব্যবহার করা যায়। সাধারণ পার্টিকেল বোর্ডে স্ক্রু ব্যবহার করলে কিছুদিন পরে তা খুলে আসে। স্ক্রু ব্যবহারের ফলে এই উপাদানের নির্মিত আসবাব কয়েকটি অংশে ভাগ করে খুলে নেওয়া যায় এবং পুনরায় স্ক্রু সাহায্যে জোড়া লাগানো যায়। ফলে অফিস স্থানান্তরের ক্ষেত্রে এসব বোর্ড খুবই কার্যকরী।

প্রলেপ হিসেবে এই বোর্ডের উপর রঙের পরিবর্তে সাধারণত Self Adhesive Vinyle Paper বা মেলামাইনের প্রলেপ লাগানো হয়। এসব পেপার বিভিন্ন রং বা Texture এর হয়ে থাকে। যেমন- সেগুন, মেহগনি, রোজউড, ওক, পাইন বা অন্যান্য কাঠ, এছাড়াও বিভিন্ন সৌন্দর্যের ও শৈল্পিক ডিজাইনের টেক্সচার পাওয়া যায়। এই পেপার লাগানোর জন্য এই বোর্ডে কোন কঠিন পদ্ধতির প্রয়োগ করার প্রয়োজন হয় না। ডিজাইন অনুযায়ী কাটা অংশগুলোতে উপরের ধুলোবালি ঝেরে পরিষ্কার করে নিলেই হল। তারপর ডিজাইন অনুযায়ী অংশগুলোকে জোড়া লাগানোর আগে বা পরে এই Sticker Paper লাগাতে হয়। বোর্ডের এক প্রান্ত থেকে শুরু করে একটি রোলারের সাহায্যে চাপ দিয়ে ধীরে ধীরে একে লাগাতে হয়। বৃত্তাকার বা অন্যান্য অসমান তলের ক্ষেত্রে এই পেপার এর উপর গরম বাতাস প্রয়োগ করে একে নরম করে নিয়ে চাপ দিয়ে লাগাতে হবে। পেপার লাগানোর কারণে রং-এর তুলনায় খরচ, সময় ও ঝামেলা অনেক কম হয়। এই ভিনাইল পেপার পানি দিয়ে পরিষ্কার করা যায় বলে রং-এর তুলনায় রক্ষণাবেক্ষণ অনেক সহজ।

নিত্য নতুন উপাদানের ব্যবহার ভোক্তা ও স্থপতি উভয়েরই কাম্য। এই উপাদান কতটা সহায়ক হবে ব্যবহারের পর তারাই এর সিদ্ধান্ত দিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.